খুলশীতে ট্রাফিকপুলিশ সহ ২ জন নিহত

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল ১০টার খুলশী ট্রেন বাস সিএনজি সংর্ঘষে ৩ মারা যায়। আহত হয় আট জন। বাকী আহতদের নেওয়া হয়েছে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে।জানা যায়, আলমগীর ভূঁইয়াসহ এ রেল ক্রসিংয়ে মাকসুদ এবং আজাদ ২৪ ঘণ্টার দায়িত্ব পালন করেন। আলমগীর ব্যস্ততম এ গেটে প্রায় সময় ব্যারিয়ার না ফেলে হাতের ইশারায় ট্রেন আসার সিগন্যাল দেন। কখনো কখনো তিনি শিশুদের দিয়ে ব্যারিয়ার ফেলানোর কাজ করান। তার বিরুদ্ধে অগণিত অভিযোগ থাকার সত্ত্বেও তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এ প্রসঙ্গে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘গেটম্যানের কোনো অবহেলা থাকলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমরা এই বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করবো। এদিকে দুর্ঘটনায় আটজন আহত ও তিনজন মারা যাওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। বাকী দুইজন চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এদিকে দুর্ঘটনায় আটজন আহত ও তিনজন মারা যাওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। বাকী দুইজন চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এরা হলেন- পুলিশ কনস্টেবল মো. মনিরুল ইসলাম (৪৫), ডালিয়া কনস্ট্রাকশনের সার্ভিস ইঞ্জিনিয়ার বাহাউদ্দিন সোহাগ (২৮) ও পাহাড়তলী কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী সাতরাজ উদ্দীন শাহীন (১৯)।

আহতরা হলেন- জমির উদ্দীন (৪০), শহীদুল ইসলাম (৪০), জয়নাল (২৬), জোবাইদা (২০), আদনান (৭) মোহাম্মদ (১০) ও বাকী দুজনের নাম পাওয়া যায় নি।
আজকের বাংলাদেশ ২৪/ মো: ইলিয়াছ হোসাইন মুন্না/ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি